কাজ না করলে পদ থাকবেনা, পরিবর্তন হতে চলেছে রাজ্যের মন্ত্রীসভার!

নিউজ ডেস্ক : শোভন চট্টোপাধ্যায় মন্ত্রিত্ব থেকে পদত্যাগের পর তাঁর অধীনে থাকা দমকল দফতর  দেওয়া হয়েছে ফিরহাদ হাকিমের হাতে। আর আবাসন দপ্তরের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে অরূপ বিশ্বাসকে। নবান্ন থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে এই দায়িত্ব বণ্টনের নির্দেশিকা জারি হয়েছে। দু’জনেই সংশ্লিষ্ট দফতরের  অফিসারদের সঙ্গে কথা বলেছেন। আগামী সপ্তাহে তাঁরা আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন বলে জানা গিয়েছে। নবান্ন সূত্রের খবর, আপাতত এই দুটি দফতরের  দায়িত্ব বণ্টন করা হলেও শীঘ্রই রাজ্য মন্ত্রিসভায় রদবদল হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আগামী সপ্তাহে মুখ্যমন্ত্রী জঙ্গলমহল-বর্ধমান সফর সেরে ফিরে আসার পরই রদবদল হওয়ার ইঙ্গিত মিলেছে।
গত ৬ জুন মন্ত্রিসভা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে চূড়ামণি হাঁসদা, জেমস কুজুর এবং অবনীমোহন জোয়ারদারকে। দায়িত্ব কমানো হয়েছিল রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের। গত মঙ্গলবার শোভন চট্টোপাধ্যায় পদত্যাগ করায় মন্ত্রিসভায় এখন চারটি পদ শূন্য। এই শূন্য পদ পূরণ করেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর মন্ত্রিসভা সাজাতে পারেন বলে জানা গিয়েছে। এই তালিকা তৈরি করতে গিয়ে তিনি যেমন কাজের যোগ্যতা বিচার করবেন, তেমনই আবার এলাকায় সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির গ্রহণযোগ্যতার বিষয়টিও খতিয়ে দেখবেন।
ইতিমধ্যেই কয়েকজন মন্ত্রীর কাজে অসন্তোষ ব্যক্ত করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমনকী বিধানসভায় প্রশ্নোত্তর পর্বে মন্ত্রীরা সঠিক তথ্য দিতে না পারায় কয়েকজনের উপরে রুষ্ট হয়েছেন তিনি। তারপর থেকেই মন্ত্রিসভায় রদবদলের চিন্তাভাবনা তাঁর মাথায় এসেছে। আবার কয়েকজন মন্ত্রীর উপর অত্যাধিক কাজের চাপ রয়েছে। যেমন, অমিত মিত্রের হাতে অর্থ ও শিল্প দপ্তরের পাশাপাশি তথ্য-প্রযুক্তি দপ্তরও রয়েছে। নতুন করে তাঁকে দেওয়া হয়েছে ই-গভর্ন্যান্স।

Please follow and like us:
1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *