কেন হার ভারতের !প্রকাশ্যে এল সেই তথ্য

নিউজ ডেস্ক : সাউদাম্পটনেই আবার প্রমাণ হয়ে গেল ভারত আছে ভারতেই। বিরাট কোহলি বা চেতেশ্বর পুজারাদের মতো দু’একজন যতই চেষ্টা করুন আসলে দলগতভাবে এখনও একত্রিত হতে পারেনি টিম ইন্ডিয়া।ট্রেন্টব্রিজ টেস্টে ভারতের দুর্দান্ত কামব্যাকের পর অনেকেই হয়তো ভেবেছিলেন, এবারে বুঝি ঘুরে দাঁড়াবে ইন্ডিয়া। ইংল্যান্ডের মাটিতে সিরিজ জয়ের দীর্ঘ খরা এবার কাটতে পারে এমন স্বপ্নও দেখতে শুরু করেছিলেন অনেকে। কিন্তু সে ভুল ভাঙতে বেশি সময় লাগল না সমর্থকদের।

শুরুটা ভাল করেছিল বিরাট এন্ড কোম্পানি। একসময় মনে হচ্ছিল ইংল্যান্ডকে প্রথম ইনিংসে ২০০ রানের নিচেই আটকে দিতে পারবে ভারত। কিন্তু এরপর পরিস্থিতি বদলে দেন ইংল্যান্ডের তরুণ অল-রাউন্ডার সাম কুরান। প্রথমে ইনিংসে তাঁর ৭৮ রানের ইনিংস ঘুরিয়ে দেয় ম্যাচের মোড়। ইংরেজদের প্রথম ইনিংস শেষ হয় ২৪৬ রানে। জবাবে ভারত অবশ্য কিছুটা লিড পেয়েছিল চেতেশ্বর পুজারার দুর্দান্ত সেঞ্চুরির দৌলতে। পুজারা যদি লোয়ার অর্ডার ব্যাটসম্যানদের কাছ থেকে যোগ্য সংগত পেতেন তাহলে প্রথম ইনিংসে আরও বেশি লিড পেতে পারত ভারত। কিন্তু তা হল না। ভারতের প্রথম ইনিংস শেষ হয় ২৭৩ রানে। পুজারা একাই করেন ১৩২ রান।

ইংল্যান্ডের প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসেও শুরুটা ভাল করেছিলেন ভারতীয় বোলাররা। এবারেও সুযোগ ছিল ইংল্যান্ডকে দেড়শো রানে আটকে দেওয়ার। আবারও বাদ সাধলেন সেই কুরান, এবার অবশ্য তাঁর সঙ্গে ছিলেন বাটলার। বাটলারের ৬৯ আর কুরানের ৪৬ রানের ইনিংসে ভর করে ভারতের সামনে জয়ের জন্য ২৪৫ রানের বিশাল লক্ষ্যমাত্রা রাখে ইংল্যান্ড। বিরাট লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নেমে আবারও প্রকাশ্যে এল ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের স্নায়ুর দুর্বলতা। ২২ রানের মধ্যেই ৩ উইকেট খুঁইয়ে চাপে পড়ে গেল টিম ইন্ডিয়া। এরপর অবশ্য কিছুটা প্রতিরোধ করেন অধিনায়ক কোহলি এবং সহ-অধিনায়ক রাহানে। কিন্তু তাদের জোড়া অর্ধশতরানেও শেষরক্ষা হল না। ভারতকে হারতে হল ৬০ রানে।

Please follow and like us:
1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *