Wednesday, April 25, 2018
Home > Uncategorized > শীতে সমুদ্র সৈকতে গা ভাসানোর খেলা

শীতে সমুদ্র সৈকতে গা ভাসানোর খেলা

পুনাম রায় :মোস্ট হট ডেস্টিনেশন ইন ইন্ডিয়া বা মোস্ট পপুলার ডেস্টিনেশন অফ ইন্ডিয়া বললেই একটাই জায়গা চোখের সামনে ভেসে ওঠে।কি! এখনও মনে পড়ছেনা? তাহলে আর একটু ভাবুন- নীল আকাশের সাথে এখানে সমুদ্রের জল কথা বলে , সোনালী বালির বিচ রোদে ঝলমল করে আর রাতের জীবনটা একটু বেশী ঝা চকচক করে। আর হবে নাই বা কেন বলুন টিনএজার্স থেকে অ্যাডাল্ট সবার হট ক আর কিছু নয় ভারতের বুকে গড়ে ওঠা ছোট্ট মিষ্টি শহর গোয়া। উত্তর থেকে দক্ষিন সমুদ্র সৈকত থেকে শষ্য শ্যামলা অরন্য সবই যেন ফ্যাশনে মোড়া। পর্তুগীজদের ঐতিহ্য আর পর্তুগাল ফ্লেভারে ঠাসা এই কেন্দ্র ভ্রমন প্রিয় আর পার্টি ফ্রিক দের জন্য এক কথায় লা জাওয়াব।
এ-তো গেলো গোয়ার আউটলাইন এবার গোয়ার বিশেষ বিচগুলোতে চোখ রাখি।
প্রথমে আসি
●বাগা বীচ :- গোয়ার সবথেকে বিখ্যাত স্পট। বলা হয় এখানে না এলে নাকি গোয়া আসা অসম্পূর্ন থেকে যায়।সকালে সমুদ্রে জলকেলি করে সমুদ্র সৈকতেই থাকা অগুনিত রেস্টুরেন্ট থেকে লাঞ্চ করা যেতেই পারে।এখানে গো উইথ দ্যা ফ্লো,জ্যামিস রেস্টুরেন্ট,চেল্সা বীচ স্যাক আরও অনেক নামি রেস্টুরেন্ট উপস্থিত।চিন্তা নেই যদি দিনের রোদ পছন্দ না হয় তবে সারারাত সমুদ্র সৈকতে পার্টি করা যেতেই পারে। আর পার্টির জন্য সবথেকে ভালো ক্লাব হলো – ক্যাফে মাম্বো,ক্যান্ডি ক্লাব।

● ক্যালাঙ্গুট বীচ :- গোয়ার সবথেকে বড় বীচ এটি।এই বীচটিকে রানী বলা হয়।সমগ্র পৃথীবির টপ টেন বিচের লিস্টে ক্যালাঙ্কুটও নিজ স্থান গ্রহন করেছে।এখানে লাঞ্চ সেরে বাগা বিচে নাইট আউট করাই যায়।সমুদ্র ছাড়াও এখানে মর্জিম বিচ, সেন্ট অ্যালেক্স চার্চ , আগুডা ফোর্ট , নেরুলা রিভার ও আরও অনেক কিছু আছে দেখার মতো।এছাড়াও কায়াকিং , সেইলিং , উইন্ড সাফার , ফিসিং এর মতো ইন্টেরেস্টিং ওয়াটার স্পোর্টস ও রয়েছে।

● পায়োলেম বীচ :-সুন্দরী নয় সুন্দরতম হলো এই বীচ । কিন্তু কুড়ে ঘর এবং হকারদের ভিড়ে একটু হলেও এর সৌন্দর্যে দাগ কেটেছে ।উত্তর গোয়ার এই সমুদ্র সৈকত থেকে সাগরের সীমারেখা প্রচন্ড আকর্ষণীয়।উত্তর গোয়ার বিখ্যাত পর্যটন কেন্দ্রের মধ্যে এটি অন্যতম। মাঙ্কি আইল্যান্ড ওয়াইল্ডলাইফ স্যাংচুয়ারি , স্কুবা ডাইভিং, সেল্ফ প্যাডেল কায়াকিং,অফবিট সাইলেন্ট নয়েজ ডিস্কো ও ডলফিন ওয়াচিং হলো এই স্থানের মূল আকর্ষন।

● কোলাবা বীচ :- গোয়া এলে কোলাবা আসবেন না তা কখনো সম্ভব! শ্বেত শুভ্র বালির চাদর আর সমুদ্রের জল এবং শান্ত নিবিড় পরিবেশ এককথায় রোমান্টিক। এখানে রাতের জীবনটা একটু বেশী মজার এবং কম বিপদজনক তাই পার্টি করার জন্য রাতে এখানের ক্লাবগুলো বেশ ভালো বলাই যায়।

● ভাগাতোর বীচ :- সূর্যাস্ত দেখার সেরা স্থান হল ভাগাতর। তালের সারি , নরম বালির চাদর ও ঠান্ডা সমুদ্রের জল গা ভাসানোর জন্য একদম সঠিক ডেসটিনেশন। যদিও রাত্রে এটি পার্টির পিঠস্থান হয়ে যায় তাই এই বীচটি বন্ধুবান্ধব ও প্রিয়জনের সাথে মজা করার ও সময় কাটানোর জন্য আইডল।

● সিনকুরিম বীচ :- ক্যান্ডোলিম আর ফোর্ট আগুডা গার্ডের সংযোগে এই বীচ অবস্থিত ।এইখানের পুরনো কেল্লা এবং লাইটহাউজ থেকে সূর্যাস্ত দেখা বেশ মজাদার ।এছাড়াও জোয়ারে ঢেউয়ের দাপট এবং আবহাওয়া এই বীচকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলেছে।

Beach scene. Playa de la Teresitas. Tenerife, Canaries

● আরামবোল বীচ :- পার্টি হাবদের জন্য যেমন গোয়া বিখ্যাত তেমনি রোমাঞ্চ প্রিয় পর্যটকদের জন্যও বিখ্যাত। তাই রোমাঞ্চে ভরা আরামবোল প্যারাগ্লাইডিং ,সার্ফিং, জঙ্গলে ট্রেকিং এর কারণে রোমাঞ্চ প্রিয় পর্যটকদের জন্য দ্রষ্টব্য স্থান ।এছাড়াও এখানের sweet water lake ও পাহাড়ের উপরে থাকা সারি সারি বটবৃক্ষের জঙ্গল এককথায় রোমাঞ্চের ঝুলি।তাই গোয়া এলে এখানে আসা মাস্ট।

● মোবর বীচ :- সমুদ্র থাকলে মোহনা থাকবেনা তা কখনো হয় !নারকেল আর তালের সারির মাঝে ঢাকা মোহনা মোবার নামে খ্যাত। এইখানে প্রায়ই কিছু না কিছু অনুষ্ঠান হতে থাকে ।এটি গোয়ার ব্যস্ততম বীচ বলে পরিচিত। এছাড়াও এইখানে কাঁকড়া বেশ বিখ্যাত বিখ্যাত।

● অ্যাসডেম বীচ :- মধুচন্দ্রিমার জন্য দ্রষ্টব্য এই বিচটি।খুব বেশী ভীড় না হওয়ায় নিরালায় সময় কাটানোর সঠিক ডেস্টিনেসন এটি।

● বেনাউলিম বীচ :- কোলাভা বিচ থেকে দুই কিলোমিটার দূরে এই বিচটি অবস্থিত। এখানে রয়েছে-প্যারাডাইস আইল্যান্ড, রামোলা সুপার মার্কেট, লক্ষ্মী মন্দির আরো অনেক কিছু এছাড়াও এখানে এক ঝাঁক রিসোর্ট রয়েছে যা বন্ধুদের সাথে সময় কাটানোর জন্য দ্রষ্টব্য।

● বাম্বোলিম বীচ :- পানাজী থেকে সাত কিমি দূরে অবস্থিত এই ছোট্ট স্বল্প পরিচিত বীচটি বেশ মনোরম।তাই কাছের মানুষকে নিয়ে এই বীচে আসা যেতেই পারে।এছাড়াও স্কুবা ডাইভিং থেকে জেট স্কিং রোমাঞ্চে ভরপুর।সুতরাং ভীড় ছেড়ে এই বীচে আসাই যায়।

● বাটারফ্লাই বীচ :- এটি গোয়ার অন্যতম সিক্রেট বীচ।বসন্তের মুকুল যখন গাছে গাছে ভরে ওঠে তখনই রঙ বেরঙা প্রজাপতির ঝাঁক এই বীচে আসর জমায়। আর এই স্বর্গীয় পরিবেশ এককথায় অতুলনীয়।আর বসন্ত কাল হলো এই বীচে আসার শ্রেষ্ঠ সময়।

● কান্ডোলিম বীচ :- স্কুটারে চেপে নিজের মন মতো ঘুরে বেড়ানোর জন্য এই বীচটি জনপ্রিয়।এছাড়াও স্পোর্টস প্রেমিরা এই বীচে নির্দ্বিধায় ফুটবল খেলতে পারে।বিকেলে দেশ বিদেশ থেকে আসা পর্যটকরা দল বানিয়ে নাচ গানের আসরুও বসান।মনোরঞ্জন আর ভালোলাগার এক অদ্ভুদ জায়গা হলো কান্ডোলিম।

গোয়ায় বীচ ছাড়াও আছে অনেক কিছু-
■ বম জিসস ব্যাসিলিকা।
■ ক্যাসিনো ক্রুইস।
■ ফোর্ট আগুডা।
■ টিটোস স্ট্রিট।
■ দুধসাগর জলপ্রপাত।
■দ্যা চার্চ অফ আওয়ার লেডি অফ ইম্যাকুলেট কনসেপসন।
■মাম্বোস।
■মিউজিয়াম অফ খ্রীষ্টান আর্ট।
■কোর্জিয়াম ফোর্ট।
■ডাইভার আইল্যান্ড
■চাপোরা রিভার ফোর্ট টারকোল।
■আনজুনা ফ্লি মার্কেট।
■ডোনা পাউলা।
■শিভা ভ্যালি।
■গ্রান্ড আইল্যান্ড।
■মাঙ্গুয়েশী মন্দির।
■বোন্ডলা ওয়াইল্ড লাইফ স্যাংচুয়ারী।
■ক্লাব কুবানা।
■টোডো ফলস।
■ভেরনা।
■মাপুসা মার্কেট।
■নোভাল অ্যাভিয়েটার মিউজিয়াম।
■স্পাইস প্লান্টেশন।

আরও অনেক কিছু।তাই অপেক্ষা না করে চলে আসুন সি – ফ্যুড , ককটেল – মকটেল, মনোরঞ্জন আর রোমাঞ্চের রাজ্যে যেখানে প্যাসান আর ঐতিহ্য একই সাথে কথা বলে।আর এরম একটা জায়গায় প্রিয় মানুষ বা বন্ধুদের সাথে এলে ক্ষতি কি! তাই দেরী না করে চলে আসুন এন্জয় করার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *