Wednesday, January 24, 2018
Home > ঘুরে আসি > রোমাঞ্চে ভরা পঞ্চগানির হাতছানি

রোমাঞ্চে ভরা পঞ্চগানির হাতছানি

পুনাম রায়: বাতাসে শীতের আমেজ যখন “শীতের ছুটি আসছে” – এই বার্তা দু হাত ভরে বাঙালীর মন ছুঁয়ে যায় , তখন আবদারী মন থেকে ছোট্টো একটা আকাঙ্খা বলে ওঠে “চলো বেড়িয়ে পড়ি”। হ্যাঁ! বাঙালী মানে শীতের চাদরে মুখ ঢেকে যেমন আলিস্যি কাটা , তেমনি ছুটির আনন্দে বস্তা পচা এক ঘেয়ে জীবনটাকে ছুটি দিয়ে ব্যাগ গুছিয়ে অচেনার কোলে ডুব দেওয়া।কখনো পাহাড় আবার কখনো সমুদ্রের ঢেউ – এর মাঝেই খুঁজে নেওয়া হয় গোটা বছরের আনন্দ।কিন্তু ওই যে বাঙালীর মন দিঘা -পুরী- দার্জিলিং ছেড়ে বেরোতে চায়না , তবে অচেনাকে চেনার সুপ্ত বাসনাটা মনের দরজায় সর্বক্ষন কড়া নাড়ে।তাই মাঝেমধ্যে ভারতের বুকে লুকিয়ে থাকা প্রকৃতির অপরূপ রূপ দেখতে বাঙালীরা বেশ ভালোইবাসেন।তবে শীতকাল বলতেই সবার প্রথম মাথায় আসে পাহাড়ের কথা আর শীতের ছুটি কাটাতে ব্যাগ
গুছিয়ে এক ছুটে পঞ্চগানি ঘুরে এলে ক্ষতি কি?

সহ্যাদ্রীর কোলে পাঁচ পাহাড়ের মধ্যমণী হয়ে পাঁচটা গ্রাম সমন্বয় তৈরী এই পাহাড়ী এলাকা এককথায় স্বপ্নপূরীর থেকে কম কিছু নয়।সিডনি পয়েন্টে কৃষ্না উপত্যকা আর সেখান থেকে ধোম জলধারার নীলিমা , এশিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্যম টেবিলল্যান্ড এছাড়াও পুরানের কাহিনী মহাভারত অন্তর্গত পঞ্চপান্ডবের অজ্ঞাতবাসকালীন গভীর গুহা যা “ডেভিলস কিচেন” নামে খ্যাত এবং সারী সারী স্ট্রবেরী ক্ষেত হল এই স্থানের মূল আকর্ষন।তাই ওক,ফার , পয়েনসেটিয়ার মায়াবী আড়ালে কৃষ্না নদীর কোলে অবস্হিত পাহাড়,নদী,মালভূমি ও উপত্যকার সংমিশ্রনে সৃষ্ট এই “পঞ্চগানি” শীতের ছুটিতে ঘুরে আসার এক দ্রষ্টব্য স্থান।

ভারতের এক অন্যতম পর্যটন কেন্দ্রের সাথে সাথেই হিন্দি চলচ্চিত্রের অত্যান্ত কাছের শুটিং স্পট হিসেবেও এটি খ্যাত।তাই ব্যাগ নিয়ে ট্রেন কিংবা ফ্লাইটে চেপে পরিবারের সাথে কিংবা প্রিয় জনের সাথে প্রকৃতির অপূর্ব সৌন্দর্য উপভোগ করতে পঞ্চগানি আসাই যায়।

এবার মনের মধ্যে প্রশ্ন আসতেই পারে কিভাবে যাবেন? কলকাতা থেকে যদি ফ্লাইটে যেতে চান তাহলে ইন্ডিগো চেপে মুম্বাই এবং সেখান থেকে ইন্ডিকা চেপে সোজা পঞ্চগানি।আর যদি চান ট্রেনে সফর করতে তবে হাওড়া থেকে দুরন্ত কিংবা গিতাঞ্জলী এক্সপ্রেসে করে মুম্বাই এবং সেখান থেকে ভিআরএল টিভিসি এক্সপ্রেস চেপে খেদ , খেদ থেকে একটা ট্যাক্সি চেপে পঞ্চগানি।বাসে চড়তে অসুবিধা না থাকলে মুম্বাই থেকে নিতা ট্রাভেলসে সোজা পঞ্চগানি যাওয়াই যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *